Saturday, 6 August 2016

বিশ্ব কবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর স্মরণে



"আজি হতে শতবর্ষ পরে
কে তুমি পড়িছ বসি আমার কবিতাখানি
কৌতূহলভরে--
আজি হতে শতবর্ষ পরে" ।।



হ্যা শত, সহস্র বছর পার হবে তবু রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের গল্প, উপন্যাস, গান বা কবিতা সবই কৌতূহলভরে আমরা পড়ব । রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর বাংলা সাহিত্যে যে প্রদ্বীপ জ্বালিয়ে গেছেন তা যুগ যুগ ধরে প্রজ্জ্বলিত থেকে আমাদের সাহিত্যকে বাঁচিয়ে রাখবেন।
রবী ঠাকুরের ছিল অনন্ত প্রেম।
তাই তার কবিতার তিনি লিখেছিলেন-

তোমারেই যেন ভালোবাসিয়াছি শত রূপে শতবার
জনমে জনমে যুগে যুগে অনিবার।
চিরকাল ধরে মুগ্ধ হৃদয় গাঁথিয়াছে গীতহার
কত রূপ ধরে পরেছ গলায়, নিয়েছ সে উপহার
জনমে জনমে যুগে যুগে অনিবার ।।

তিনি বেদনাকে মধুরতায় প্রকাশ করেছিলেন । তাই তো তার গানে পাওয়া যায়- 

"বিরহ মধুর হল আজি মধুরাতে ।
গভীর রাগিণী উঠে বাজি বেদনাতে" ।।

রবী ঠাকুর এর অধিকাংশ কবিতা বা গানে যে ভাবটা বেশি পাওয়া যায় তা হল -
স্রষ্টার প্রতি গভীর ভালবাসা ও প্রেম। তাই তার অনেক কবিতা ও গানে সে সুর আর কথা প্রকাশ পায়।

"তুমি মোর আনন্দ হয়ে
ছিলে আমার খেলায়
আনন্দে তাই ভুলে ছিলেম
কেটেছে দিন হেলায়
গোপন রহি গভীর প্রানে
আমার দুঃখ সুখের গানে

সুর দিয়েছ তুমি , আমি তোমার গান তো গাই নি

আমার হিয়ার মাঝে লুকিয়ে ছিলে
দেখতে আমি পাইনি , আমি দেখতে আমি পাইনি" 




No comments:

Post a comment